অপ্রকাশিত চিঠি

অপ্রকাশিত চিঠি

আজ সকালে বইয়ের আলমারিটা গুছাতে গিয়ে হঠাৎ একটা ধুলো পড়ে যাওয়া কাগজ পেলাম। কাগজটা খুলে দেখতে গিয়ে মনে পড়ে গেল, কিছু বছর আগের পুরনো কথাগুলো। মনে পড়ে গেল নিজের মনের কথাগুলো ,যেগুলো তোর কাছে অপ্রকাশিত ছিল, সেগুলোই লিখেছিলাম একটা চিঠিতে ।লেখা শেষ করে পাঠাবার জন্য ঠিক করছি, ঠিক সেইসময় খবরটা পেলাম। জানতে পারলাম তুই একজনকে ভালবাসতিস অনেকদিন ধরে, দীর্ঘদিন সম্পর্কেও ছিলিস তোরা ।কিন্তু হঠাৎই কোন কারন ছাড়াই সে তোকে ছেড়ে অন্য কাউকে নিজের করে নিয়েছে।প্রচন্ড দুঃখ-কষ্ট সহ্য করতে না পেরে, গতরাতে তুই নিজেকে শেষ করে দিয়েছিস।আর যে আমায় তুই নিজের সবচেয়ে কাছের বন্ধু ,ভালো বন্ধু বলতিস, মনের সব কথা বলতিস, তার থেকেও তুই তোর এই ভালোবাসা আর নিজেকে শেষ করার কথাগুলো লুকিয়ে গেছিলি। খবরটা শোনার পর চিঠিটা ওই আলমারিতে রেখেই তোকে শেষ দেখা দেখতে গেছিলাম। পাঠাতে গিয়ে শেষ মুহূর্তে পাঠানো হয়নি সেটা। অনেকদিন পর হঠাত সেই চিঠিটা খুঁজে পেয়ে, খুলে দেখলাম ধুলোয় মাখামাখি হয়ে অনেক শব্দই অস্পষ্ট হয়ে গেছে চিঠিটার। কিন্তু তোর জন্য লেখা চিঠিটার প্রত্যেকটা শব্দ আজও আমার মনে আছে। জানিস চিঠিটা বুকে জড়িয়ে ধরতেই, বাঁধ ভেঙে দুচোখ ভরে জল নেমে এল।তবে পুরুষ তো তাই জোরে কাঁদতে পারিনা বা কাউকে বলতে পারিনা এই কষ্টটা। কারণটা তো জানিসই ,পুরুষের মন নাকি পাথরের মত শক্ত হয় কাঁদা বা কষ্ট পাওয়া ছেলেদের নাকি সাজেনা, ওসব নাকি স্ত্রীসুলভ আচরণ। কিন্তু সত্যি বলছি ,তোর কথা মনে পড়লে এখনোও বুক ফেটে যায় কষ্টে । জানিস অনেক ভেবে ভেবে চিঠির প্রত্যেকটা শব্দ লিখেছিলাম, যাতে প্রতিটা শব্দ তোর প্রতি আমার প্রচন্ড ভালোবাসাটার জানান তোকে দেয়। আবার জানিস তো শখ করে পাগলের মত চিঠিটার একটা নামও দিয়েছিলাম, ‘ভালোবাসার চিঠি’।জানিস সেদিন তোর চলে জানার খবরটা যে সময় পেয়েছিলাম, আর আজ যে সময় এই চিঠিটা পড়ছি,সেই  দুটো সময়ই এক।তাকিয়ে দেখলাম আজও আমার ঘরের ঘড়িটার কাঁটাটা দেখাচ্ছে 10 টা বাজছে।আর সেদিনের মতো আজও ঘড়ির ঘন্টাটা একটু বেশিই জোরে যেনো ঢং ঢং করে বেজে উঠে বার বার সময়টার জানান দিতে চাইছে আমায়, বোঝাতে চাইছে সময়টার গুরুত্ব। জানিনা ওই তারাদের দেশে তুই কতটা সুখে আছিস বা কতটা ভালো আছিস, তবে আমি এখনো তো ভালো আর সুখই চাই ।মনে আছে ,এক সময় তুই আমায় মজা করে পাগল বলতিস? তখন রেগে যেতাম ঠিকই ,কিন্তু আজ আর রাগবো না। আজ স্বীকার করছি আমি সত্যি পাগল ,সেদিনও তোকে পাগলের মত ভালবাসতাম, আজও পাগলের মতো ভালোবাসি তোকে। পার্থক্য শুধু সেদিন তুই ছিলি আর আজ তুইই নেই। আর আফসোস একটাই আমার ভালোবাসাটা যদি সেদিন তুই বুঝতিস, তাহলে আজ হয়ত………।।

অঙ্কিত দাস

গল্পটি আপনার কেমন লাগলো রেটিং দিয়ে জানাবেন
[Total: 0   Average: 0/5]
বন্ধুদের সঙ্গে "Share" করুন।
Open chat
1
যোগাযোগ করুন
আপনার গল্পটি প্রকাশ করার জন্য যোগাযোগ এখনে।