আধারূয়া ভালোবাসা

আধারূয়া ভালোবাসা

গল্পের নাম: আধারূয়া ভালোবাসা

লেখকের নাম : ইবাদুল হুছেইন

 

 

তুই কি সব সময় এমনি থাকবি ? !!
– কেমন ?
:- কেয়ারলেস…
– আমি কেয়ারলেস, এইটা বলতে পারলি ?
:- তো কি ?
কেয়ারলেসকে ,কেয়ারলেস বলবনা তো কি বলবো…??
– বল আমি কি তোর কেয়ার করি না ?
:- আমি কি আমার কথা বলছি ?
তুই নিজের কেয়ার নিস না কেন রানা?
ঠিক মত ঘুমাস না রাতে, খাওয়া দাওয়া করিস না নিয়মিত,
চেহারার কি অবস্থা বানাইছোস ?
– সেটা বল, এতো কেয়ার নিয়ে কি হবে ?
একদিন তো ঠিকই মরে যাবো…
:-রানা একটু বেশী হয়ে যাচ্ছে না ?
কথায় কথায় মরার কথা বলিস কেন ?
জানিস না এইগুলা বললে আমার খারাপ লাগে…
– আচ্ছা রিনা একটা কথা বলি রাগ করিস না প্লীজ, শুধু উত্তর দিবি…

 




 

:- বল… !!!
– আমি যদি মরে যাই তাহলে তুই কি একটুও কান্না করবি…
:- না করবো না, তুই কে আমার…?? :’(
রানা প্লীজ এমন বলিস না, আমি সত্যি মরে যাবো… :’(
তুই বুঝিস না আমি তোকে কতটা ভালোবাসি ?
নাকি বুঝেও আমায় কষ্ট দিস…??
– বন্ধুকে ভালো না বাসলে কাকে বাসবি…??
:- বন্ধুর থেকে বেশী আমি তোকে ভালোবাসি…
– কেন বাসিস ?
আমি তো তোকে শুধু বন্ধু মনে করি…
:- প্লীজ এভাবে বলিস না,
আমি জানি তুইও আমাকে ভালোবাসিস…
– না বাসি না, এটা তোর ভুল ধারনা…
আচ্ছা আমি যাই, আর হয়তো কথা হবে না,
কাউকে মিথ্যা আশা দিতে পারবো না আমি,
:- আচ্ছা ভালোবাসতে হবে না,
বন্ধুটাকে রেখে কোথায় যাচ্ছিস ??
বন্ধুত্বটা তো শেষ হয় নি…
– না এটা লাগবে না,
শুধু শুধু মায়া বাড়ানোর দরকার নেই,
বাই ভালো থাকিস,

..…… এভাবে রানার চলে যাওয়ার দিকে তাকিয়ে থাকে রিনা,
কিভাবে এত সহজে সব কিছু শেষ করে দিলো,
সেটা ভেবেই অঝরে কেঁদে যাচ্ছে রিনা…
আধরা জানেও না কেন রানা এমন করলো,
হঠাত করে তো রানা এমন করার কথা না,
বেচেঁ থাকাটা এখন অর্থহীন মনে হচ্ছে রিনার কাছে…

……কিছুদিন পর রানা হসপিটালে মৃত্যুর সাথে লড়াই করছে,
মুনা পাশে বসে ওর মায়া ভরা মুখটা দেখছে আর কাঁদছে…

 




 

 

– কিরে কাঁদছিস কেন ?
:- যখন তুই এভাবে আমায় দূরে ঠেলে দিয়েছিলি তখনই বুঝছি আমার রিনা তো এমন না…
তুই কেন এমন করলি ?
-আমার ব্রেন টিউমার লাস্ট স্টেজ,
এটা বললে তুই কষ্ট পেতি,
তাই তোর কাছ থেকে দূরে থেকে কিছুটা পিছুটান কমাতে চেয়েছিলাম…
পারলাম কই ?
:-রানার জীবনের শেষ কয়টা দিন আমায় সাথে রাখলি না ?
– এই চিঠিটা রাখ…
আমি যেদিন থাকবো না সেদিন পড়বি এটা…
:- *** :’( :’( :’(

..…… আজ বাহিরে অনেক বৃষ্টি হচ্ছে,
সাথে যেন সঙ্গী হয়েছে রিনার চোখের পানি…
রানা নেই ভাবতেই কষ্টের পাহাড় বুকে চেপে বসে যায়…
হাতে কাব্যর চিঠি…
অনেকবার পড়েছে চিঠিটা,
যতবার পড়েছে ততই অঝর ধারায় কেঁদে যাচ্ছে মেয়েটা…

……চিঠিতে শুধু দুটি লাইন লেখা…
আধরা…
পৃথিবীতে যদি আরেকবার আসার সুযোগ হয় তখন তোকে নিয়ে বাচবো,আনেক বাচতে ইচ্ছে করছে তোকে নিয়ে.…
ভালোবাসি তোকে প্রিয়তমমেষু…

রিনার চোখ ঝাপসা হয়ে আসছে…
নিঃশ্বাস নিতে অনেক কষ্ট হচ্ছে…
তারপরও অনেক ভালো লাগছে যে কাব্যর কাছে যাচ্ছে…
বেচেঁ থাকাটাকে অর্থহীন করে দিয়ে,
পার্থিব সব মায়া ত্যাগ করে রিনা চিরদিনের জন্য রানার কাছে চলে গেলো….

 




গল্পটি আপনার কেমন লাগলো রেটিং দিয়ে জানাবেন
[Total: 0   Average: 0/5]
বন্ধুদের সঙ্গে "Share" করুন।
Open chat
1
যোগাযোগ করুন
আপনার গল্পটি প্রকাশ করার জন্য যোগাযোগ এখনে।