মানুষ রুপি বাঘ

মানুষ রুপি বাঘ

গল্পের নামমানুষ রুপি বাঘ

লেখক—গোপাল মন্ডল

 

কদিন একটি মেয়ে তার বয় ফ্রেন্ডের সাথে সুন্দরবন ঘুরতে যায় , পুরো সুন্দরবন ঘোড়া হলো কিন্তু যেখানে বাঘ থাকে সেখানে ওদের ঘোড়া হলো না , কেন না সেখানে যাওয়া নিষেধ , কিন্তু তাদের মন মানলো না , তারা গাইডের সাথে কথা বললো, গাইড বললো দেখুন ওখানে যাওয়া হবে না , ফরেস্ট অফিসার পারমিশন দেবে না, এই বলে গাইড দুজন কে তাদের হোটেলে নিয়ে গেলো , তারপর দুজন মিলে প্লান করলো , যে এখানে এসেছি যেকালে বাঘ আমরা দেখবই , এই বলে দুজন বেরিয়ে পড়ল , হোটেল ম্যানেজার জিজ্ঞাসা করায় তারা উত্তর দিলো , বাগান বাড়ি থেকে একটু ঘুরে আসছি , হোটেলের বাগন বাড়ি টি কাছেই ছিল তাই ম্যানেজার আর কিছু বললো না , এরপর গভীর জঙ্গলে যখন দুজন সবার চোখে ফাঁকি দিয়ে পৌঁছালো তখন রাত ২ টো

 




 

বেজে গেছে , একি সামনের দিক থেকে একটি বাঘ ছুটে আসছে দুজনের দিকে , তখন মেয়ে টিকে কোনো রকম ভাবে একটি গাছে তুলে দিল ছেলে টা আর ছেলে টা গাছের ডাল থেকে পা পিছলে পরে গেল , মেয়ে টি কোনো রকম নিজের ওড়না দিয়ে গাছের ডালের সাথে নিজেকে বেঁধে নিলো আর অজ্ঞান হয়ে গেল, তারপর সকাল হতেই মেয়ে টি দেখলো সে ও তার বয়ফ্রেন্ড দুজনেই হোটেলে আছে, মেয়ে টা অবাক তাহলে কি রাতের ঘটনা টা শুধুই স্বপ্ন ছিলো , মেয়ে টি ছেলে টা কে জিজ্ঞাস করলো , রাতের বেলায় আমরা কোথায় গিয়েছিলাম ? তখন তার বয়ফ্রেন্ড বললো , কেন তুমি কি কিছুই জানো না, মেয়ে টা না , তখন ছেলে টা বললো , ও কিছু না বাগান বাড়ি গিয়ে তোমার মাথা ঘুরে গেছিলো , তারপর তোমাকে আমি হোটেলে নিয়ে আসি , তারপর দুজন নিজেদের

বাড়ি ফিরে আসে , কিছু দিন কাটার পর , দুজন মিলে রেজিস্ট্রিমেরেজ করে বিয়ে করলো , বেশ কিছুদিন ভালোই কাটলো , হঠাৎ এক আমাবর্ষার রাতে , ছেলে টি তার বউ কে বলল , আজ আমি রাতে থাকবো না তুমি পারলে বাপের বাড়ি গিয়ে আজকের থেকে আসো , মেয়ে টি রাজি হলো না ,বললো আমি এখানেই একা থাকবো , ব্যস তারপর ছেলে টা তার কাজে বেরিয়ে যায় , কিছুক্ষন পরে তার কোম্পানি থেকে ফোন আসে , হ্যালো কে , অরূপ আছে , না ও তো কাজে বেরিয়ে গেছে ,, কিন্তু আজ তো কোনো কাজ নেই , কি বলছেন আপনি , হে আমি ওকে এটাই বলার জন্য ফোন করলাম যে তিন দিন ছুটি আছে , কিন্তু ও যে আমায় বলে গেল , ঠিক আছে ও আসলে আমি বলে দেবো , এই বলে ফোন টা রেখে দিল , তার পর মাঝ রাতে , দরজার কোনিং বেলের

আওয়াজে ঘুম টা ভেঙে যায় মেয়ে টা দরজা টা খুললো কিন্তু কারোর দেখা নেই , মেয়ে টি আবার শুয়ে পড়লো , হঠাৎ যেন বাঘের ডাক শুনতে পারছে মেয়ে টা , কিন্তু বাঘকে কোথাও দেখতে পারছে না , হঠাৎ , পাশের ঘড়ের ভেতর থেকে আওয়াজ টা ভেসে আসছে , মেয়ে টি দরজা টা যখন খুলে দেখে , তার স্বামী অর্ধেক মানুষ আর অর্ধেক বাঘ , ব্যাশ তখন মেয়ে টার সব মনে পড়তে লাগলো , মেয়ে টা কোনো রকম দরজা টা বন্ধ করে , সোজা পুলিশ স্টেশনে গেল , তার পর পুলিশ এসে তার সামী কে গুলি করে মেরে দেয়
😢😢😢😢😢😢😢 😊 সমাপ্ত

 




গল্পটি আপনার কেমন লাগলো রেটিং দিয়ে জানাবেন
[Total: 0   Average: 0/5]
বন্ধুদের সঙ্গে "Share" করুন।
Open chat
1
যোগাযোগ করুন
আপনার গল্পটি প্রকাশ করার জন্য যোগাযোগ এখনে।