Home Detective Story Bengali Detective Story - অতি চালাকের গলায় দড়ি

Bengali Detective Story – অতি চালাকের গলায় দড়ি

Today, we have gone a lot of distance from reading the storybooks. Because we don’t have sufficient time for going to the library and reading the storybooks In this age of the Internet. But, if we can read the story on this internet, then it is very interesting. So we have brought a few collections of Bengali story for you. Hope you will enjoy the stories in this busy lifestyle. In this post you will find the latest Detective Story in Bengali, You can read here  Detective Story, download  Bengali Detective Story, Hare you found top Detective Story in Bengali.

 

অতি চালাকের গলায় দড়ি 

বীরু চট্টোপাধ্যায়

 

উনবিংশ শতাব্দীর কাহিনী।
ফরাসী দেশের শ্রেষ্ঠ গােয়েন্দা ছিলেন, মসিয়ে রুশাে।
তার অফিসে একদা এসে উপস্থিত হলেন পরমাসুন্দরী এক অভিজাত মহিলা। বয়স
হয়ত চল্লিশের ওপারে কিন্তু অদ্ভুত যৌবন বেঁধে রেখেছেন সারা দেহে। বয়স যেন
থেমে আছে কুড়ি পঁচিশের মধ্যে।
গােয়েন্দা সাহেব মুখ তুলে চাইলেন—বসুন।
লীলায়িত ভঙ্গিতে একটি কৌচে বসলেন রূপসী। চোখে মুখে চিন্তার রেখা।
—আপনার কি উপকারে লাগতে পারি বলুন মাদাম? ডিটেকটিভ প্রশ্ন করলেন।
—বড় বিপদে পড়েই আপনার শরণাপন্ন হয়েছি মসিয়ে, কোকিল নিন্দিত কণ্ঠে
বললেন মহিলা।
বিপদ? খুলে বলুন কি হয়েছে?
সে বড় অদ্ভুত বিপদ। গােড়া থেকেই বলি, উগ্রসেন্ট মাখা ক্ষুদ্রাকার রুমাল দিয়ে
ঠোটের চারপাশ স্পঞ্জ করতে করতে বললেন অভিজাত রূপসী, আমি বিবাহিতা।
সুখের কথা, বলুন।
আমার প্রথম স্বামী জা রাঁতেল বছর দেড়েক পূর্বে সমুদ্র ভ্রমণে যায় । কিন্তু বড়ই
আফসােসের কথা, তিনি আর ফিরে আসেন নি। একেবারে নিরুদ্দেশ হয়ে যান। বুঝতেই পারছেন কি সাংঘাতিক মনের অবস্থা হল আমার সে সময় এ ঘটনায় ! শােকে-দুঃখে।
পাগল হয়ে গেলাম। তারপর এত বছর পর্যন্ত আমি ওঁর প্রতীক্ষা করেছি ভেবেছি এই
আসে এই আসে। কিন্তু আমার দুর্ভাগ্য, সে আর এল না। তখন আমি দ্বিতীয় বার বিবাহ
করি আমার বর্তমান স্বামীকে নাম বললে চিনতে পারবেন, নাম রুবেন চিলকট, ফ্যাসান।
ডিজাইনার।

—আই সি ! চিনি, খুব চিনি। তারপর ?
ভদ্রমহিলা তারপর যা বললেন তা অতীব বিস্ময়কর। অদ্ভুতও বটে।
—দিন সাতেক আগে আমি ল্যাটিন কোয়াটারের এক অন্ধকারাচ্ছন্ন স্থানে পার্ক।
করা গাড়িতে ফিরে আসছিলাম, মহিলার চোখে-মুখে ভীতির ভাব পরিলক্ষিত হল,
সেই সময় আমি সহসা ভীষণ ভাবে চমকে উঠলাম। মুখােমুখি দেখা হল একজনের
সঙ্গে। আমি চিৎকার করে উঠলাম ভয়ে। হুবহু আমার পূর্ব স্বামী জা রাতেল। হয়ত
চেহারার সাদৃশ্যও হতে পারে। কিন্তু আশ্চর্য আমি ভয় পেয়ে চিৎকার করে উঠতে
লােকটা ছুটে পালালাে।
—আপনি ল্যাটিন কোয়াটারে গিয়েছিলেন কি জন্যে ? প্রখ্যাত গােয়েন্দা প্রশ্ন করেন।
মহিলাটি হাসলেন, যেন লজ্জার হাসি।
—আমার একটা হবি আছে। আমি আর্টিস্টের মডেলের কাজ করি মাঝে মাঝে।
মানে অ্যামেচার হিসেবে। একজন আর্টের ছাত্রীর স্টুডিওতে গিয়েছিলাম সেদিন মডেলের
পােজ দিতে।
—আই সি। আচ্ছা যাকে সেখানে দেখলেন সে লােকটা বুঝি অবিকল আপনার
স্বামীর মত দেখতে?
—শুধু দেখতে নয়, সে প্রকৃতই জা রাঁতেল এ বিষয়ে কোন সন্দেহই নেই। ওর বাঁ
গালে একটা দাগ দেখেই চিনতে পারলাম।
—ই, গম্ভীর হয়ে গেলেন গােয়েন্দা সাহেব, বলুন এবারে কি ভাবে আপনাকে
সাহায্য করতে পারি-

Bengali Detective Story – Detective Story

—আপনি অনুগ্রহ করে জকে খুঁজে বার করুন, রূপসী অনুনয় করল, যত টাকা

লাগে—মানে আমি বরং এখনি কিছু টাকা অ্যাডভান্স করে যাই।
–আচ্ছা মাদাম, এ ব্যাপারে আপনি পুলিশের সাহায্য নিচ্ছেন না কেন?
—লােক জানাজানি হােক, এটা আমি চাই না। পুলিশে ছুঁলে আঠারাে ঘা। তার
ওপর আছে দৈনিকপত্রগুলি। না, না মসিয়ে ওসব ঝঞাট আমি চাই না, কাইণ্ডলি
আপনিই আমার নিরুদ্দিষ্ট স্বামীকে বার করে দিন।
—ক্ষমা করবেন মিসেস চিলকট, একটা কথা জিজ্ঞেস করি। আপনি বর্তমানে অন্যঅতি
লােকের স্ত্রী। এ অবস্থায় প্রথম স্বামীকে খুঁজে বের করে আপনার কি লাভ হবে?
লাভ না হােক লােকসানের ভয় পাচ্ছি আমি, মহিলা গভীর চিন্তিত ভাবে বললেন,
আমার ভয়, ও হয়ত প্রতিশােধ নেবে। আমি কেন অপেক্ষা করলাম না ওর জন্যে, কেন
আমি ফের বিয়ে করলাম এই সব কারণে হয়ত ও খুবই রেগে আছে। প্রতিহিংসাবশত
যদি সাংঘাতিক কোন ক্ষতি করে আমার, এই ভয়ে আমি মরে যাচ্ছি।
—বেশ, বিখ্যাত গােয়েন্দা মসিয়ে ভিক্টর রুশাে মহিলাটির কেস নিতে রাজী হয়ে।
বললেন, দেখা যাক কতদূর আপনাকে সাহায্য করা যায়।
তিনি অবিলম্বে চতুর্দিকে বহুলােক লাগালেন। চরেরা প্যারিস ও আশে-পাশের দিকে।
দিকে তন্ন তন্ন করে অনুসন্ধান শুরু করে দিল নিরুদ্দিষ্ট জাঁ রাঁতেলের।
শিকারী কুকুরের মত তারা কড়া নজরে সব জায়গা ছুঁড়ে বেড়াতে লাগল।
মসিয়ে রুশাে নিজেও চুপচাপ রইলেন না। খবরাখবর সংগ্রহ করে জানলেন, এই
রূপসী অভিজাত ভদ্রমহিলাটি এককালে প্যারিসস্থ একটি থিয়েটারে নর্তকীর কাজ
করতেন। অতীত জীবন বহু মুখরােচক ইতিহাসে ভর্তি। বহু লােককে মুগ্ধ করেছেন
নৃত্যের কৌশলে।
বর্তমানে বিবাহ করেছেন নিজের সামাজিক অবস্থার চেয়ে কিঞ্চিৎ উধ্বেই বলা
যায়।

কদিন বাদেই মসিয়ে রুশাে সবিস্ময়ে দেখলেন, প্যারিসের সমস্ত দৈনিকপত্রে বড়
বড় শিরােনামায় একটি লােমহর্ষক হত্যাকাণ্ডের সংবাদ বেরিয়েছে। নিহত ব্যাক্তি আর
কেউ নয়, ফ্যাসান ডিজাইনার স্বয়ং চিলকট। তাকে তার দোকানের মধ্যেই নিহত অবস্থায়
পাওয়া যায়। বুক ভেদ করে গেছে একটি বন্দুকের গুলি।
এই শােকাবহ ঘটনার সময় মাদাম চিলকট নাকি ল্যাটিন কোয়াটারে এক শিল্পী-
ছাত্রীর স্টুডিওতে মডেলরূপে পােজ দিচ্ছিলেন।
গােয়েন্দা সাহেব পূর্বেই জানতেন মহিলা মডেলের কাজ করেন।
কালবিলম্ব না করে শােকাভিভূতা সদ্য বিধবা মাদাম চিলকটের নিকট গিয়ে উপস্থিত
হলেন মসিয়ে রুশাে।
ওঁকে দেখে প্রায় কেঁদে উঠলেন ভদ্রমহিলা, আসুন মসিয়ে। উঃ কী সর্বনাশ হয়ে
গেল আমার। আগেই আপনাকে বলেছিলাম কোন একটা বিপদ আমার হবে। আপনিও
কিছু করলেন না। আমার সাংঘাতিক বিপদ হয়ে গেল। এবার পুলিশরাই আসামী খুঁজে
বার করবে।
—আপনি কাকে সন্দেহ করছেন?
—কেন, আততায়ী আমার প্রথম স্বামী জাঁ রাঁতেল ছাড়া আর কেউ নয়।
পুলিশও তন্ন তন্ন করে খুঁজতে লাগল জাঁ রাঁতেলকে। কিন্তু কোথাও তাকে খুঁজে
পেল না তারা।

Bengali Detective Story – Detective Story in Bengali 

অবশ্য মসিয়ে রুশাে নিজ আগ্রহেই কেসটা একেবারে ছেড়ে দিলেন না।
মিসেস চিলকটের যদিও অশৌচকালীন অবস্থা, তবুও লক্ষ্য করা গেল যে তিনি
নিয়মিত ল্যাটিন কোয়াটারে সেই শিল্পী-ছাত্রীটির স্টুডিওতে যাতায়াত করছেন।
একদিন দেখা গেল, বলা নেই কওয়া নেই প্রখ্যাত গােয়েন্দা মসিয়ে রুশাে গিয়ে
হাজির সেই ছাত্রীর স্টুডিওতে।
মুখােমুখি হলেন মিসেস চিলকট ও শিল্পী-ছাত্রীটির।।
ওরা যেন খুবই বিস্মিত হল দু’জনে। কিছুটা বুঝি চমকেও উঠল। .
—কি ব্যাপার? আপনি হঠাৎ এখানে? কিছুটা যেন উষ্ণস্বর মহিলার।
কোন ভুমিকা করলেন না মসিয়ে রুশাে।
সরাসরি বললেন, আমি বলতে এসেছি যে জাঁ রাতেল-এর রােমহর্ষক কাহিনীটি।
আপনারই মস্তিষ্কের পুরােপুরি কাল্পনিক ও, বানানাে কাহিনী।
—কি যা তা পাগলের মত বলছেন মসিয়ে।
আপনি মুখে স্বীকার না করলেও মনে মনে বুঝতে পারছেন যে ঠিকই বলছি, মুখের
পাইপের ফাকে র্মসিয়ে রুশাের কথাগুলি যেন চিবিয়ে চিবিয়ে বেরুতে লাগল, ঐ নামে
কোন মানুষই ছিল না এ পৃথিবীতে। আমার কাছে আপনি একটা পাকা ষড়যন্ত্রের দুষ্ট
বুদ্ধি নিয়ে উপস্থিত হয়েছিলেন। যে খুনটি আপনি স্বহস্তে করবেন বলে পরিকল্পনা
করেছিলেন, তার জন্যে যাতে গিলােটিনে উঠতে না হয়, সেই কারণে এই ভয়াবহ
চালাকির আশ্রয় আপনি নিয়েছিলেন। আর এও ভেবেছিলেন আমাকে ও জনসাধারণকে
আপনি বােঝাবেন যে এই চিলকট হত্যাকাণ্ডের আসামী জা রাতেল ছাড়া আর কেউ
নয়। বড় সুন্দর কাল্পনিক স্বামী তৈরী করেছিলেন মাদাম!

বদ্ধ উন্মাদ হয়ে গেছেন, আপনি মসিয়ে ! মহিলা প্রায় রেগে গেলেন, এ ধরনের
প্রলাপের অর্থ?
—মাথা আমার ঠিকই আছে মাদা, মসিয়ে রুশাের মুখে ব্যঙ্গের হাসি ফুটে উঠল,
কিন্তু সত্যি বলছি আপনার মাথাটি বাঁধিয়ে রাখবার মত। অসাধারণ ধূর্ত আপনি।
মহিলা যেন বােবা হয়ে গেল কিছুক্ষন!
—তাহলে আরও শুনুন, গােয়েন্দা সাহেব বলতে শুরু করলেন, আপনি চিলকটের
ধনসম্পত্তি গ্রাসের মতলবে ছিলেন। আর, আর আপনার জীবনের একটি অতি গােপন
সংবাদ তার কান বাঁচিয়ে রেখেছিলেন।
শিল্পী ছাত্রীর দিকে তাকিয়ে তিনি বললেন, এই মেয়েটি, বিদেশে গোপন সংবাদ
পাচারকারী সংস্থার নেত্রী। এই কথাটি যাতে চিলকট না জানে তার জন্যে আপনি সদাসর্বদা
শঙ্কিত ছিলেন।
আপনার ব্যাঙ্কে খোঁজ নিয়ে জেনেছি প্রচুর অর্থ আপনার একাউন্টে লেনদেন হয়।
বিদেশ থেকে বহু অর্থ আপনি পান। তবু আপনার লােভ আকাশ ছোঁয়া। আজই আপনি
একটি চেক নাশ করেছেন। সে খবরও আমি নিয়েছি। আমার ফি দেবার ব্যাপারে।
আপনি মডেলের পােজ করেন এই ভান করেছেন। ‘
তেমনি বােবার মত বসে রইলেন মহিলা।

Bengali Detective Story –  Detective Story Books 

—আমি যে অহােরাত্র আপনাকে অনুসরণ করে ফিরছি সে সংবাদ আপনি রাখেন

না। কিন্তু আর পরিত্রান নেই। অপরাধী দু’জনেই ধরা পড়ে গেছেন। শাস্তি এবার পেতে
হবেই। লিটকে আপনি নিজহাতে গুলি করেছেন। সংবাদ পত্রে উল্লিখিত কথা সাজানাে,
আপনি সে সময় স্টুডিওতে আদৌ ছিলেন না।
অকস্মাৎ ফণিনীর মত তড়াক করে লাফিয়ে উঠলেন মহিলা। দ্রুত লয়ে হ্যাণ্ডব্যাগ।
খুলে কি একটা বার করতে গেলেন কিন্তু তার আগেই তড়িৎ বেগে এগিয়ে গিয়ে
সিয়ে রুশাে তাকে ধরে ফেললেন।
শিল্পী ছাত্রীর ও মাদাম চিলকটের বিচার শুরু হল।
এমন অসাধারণ চতুর পরিকল্পনাকারিনী রূপসী মাদাম চিলকট কিন্তু সবার চেয়েও
ধূর্ত মসিয়ে রুশাের কোন প্রমানকেই নাকচ করতে সমর্থ হলেন না।
যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয়ে গেল মহিলার। সেই মেয়েটিরও কারাদণ্ডের আদেশ
হয়েছিল, কিন্তু কি ভাবে যেন সে আইনের চোখে ধুলাে দিয়ে ফরাসী দেশের বাইরে
উধাও হয়ে গেল।
এ এক অদ্ভুত কেস।
অদ্ভুত এক দৃষ্টান্ত।
অপরাধের ইতিহাসে কোন খুনী আসামী নিজে অর্থ দিয়ে নিজের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড
ক্রয় করেছে বলে ইতিহাসে নজির নেই।
এই রূপসী মাদাম চিলকটই গাটের অর্থ অ্যাড়ভান্স করে ডিটেকটিভ নিযুক্ত করেছিল,
আর সেই ডিটেকটিভ তাকে তার অপরাধের অভিযােগে শাস্তির ঘানিতে কালবিলম্ব না
করে ঢুকিয়ে দিল।
একেই বলে অতি চালাকের গলায় দড়ি।

সমাপ্ত


LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Must Read

Bengali Horror Story – ভূতের সঙ্গে গল্পসল্প

Today, we have gone a lot of distance from reading the storybooks. Because we don't have sufficient time for going to the library and...

Thakurmar Jhuli Golpo – চাষা ও চাষাবউ

Today, we have gone a lot of distance from reading the storybooks. Because we don’t have sufficient time for going to the library and...

Bengali Sad Story – তোমায় ছাড়া বেঁচে থাকি কি করে

Today, we have gone a lot of distance from reading the storybooks. Because we don't have sufficient time for going to the library and...

Bengali Detective Story – কঠিন শাস্তি

Today, we have gone a lot of distance from reading the storybooks. Because we don't have sufficient time for going to the library and...

Bangla Rupkothar Golpo –  রাখাল ও পরীর

Today, we have gone a lot of distance from reading the storybooks. Because we don't have sufficient time for going to the library and...